Menu |||

বইয়ের মেলায় বাড়ছে আনাগোনা

সোমবার বিকালে বই মেলায় ঘুরে পাঠকের উপস্থিতি বাড়ার চিত্র দেখা যায়। পাঠকরা নতুন বইয়ের ধারে ঘুরছেন, উল্টে-পাল্টে দেখে কিনছেনও তারা।

পাঠক বাড়ার ফলে খুশির ঝিলিক প্রকাশক ও বিক্রয়কর্মীদের মুখে; এবারের মেলায় বেশি মানুষের উপস্থিতির ইঙ্গিত ‘দেখছেন’ তারা।

বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে মেলার ভেতরে নিজেদের মতো ঘুরতে আর ছবি তুলতে দেখা যায় ঢাকা সিটি কলেজের তিন ছাত্রীকে। নানা ফুলের বাহারি ব্যান্ড পরা ছিলেন তিনজনই।

তাদের একজন তামান্না খান বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বললেন, বই দেখার পাশাপাশি বিকালে ঘুরে বেড়ানোও তাদের এখানে আসার উদ্দেশ্য। প্রতিজন দুই-তিনটা করে বইও কিনেছেন তারা।

“গত কয়েক বছর ধরে বই মেলায় আসি। প্রথম দিকে ভিড়-ভাট্টা কম থাকে। বই কেনার পাশাপাশি ঘুরেও শান্তি।”

তাদের সঙ্গে কিছু সময় কথা বলার পর মেলার সোহরাওয়ার্দী উদ্যান প্রাঙ্গণে কথা হয় রাষ্ট্রবিজ্ঞানী অধ্যাপক রওনক জাহানের সঙ্গে।

বেশ কিছু বই কিনে আপন মনেই মেলায় ঘুরে ফিরছিলেন তিনি। এরপরও বইয়ের স্টলগুলোতে ঢুঁ মারছিলেন।

তিনি সাংবাদিকদের বলেন, “শুরুর দিকে অত বেশি ভিড় নাই এখন। স্বাচ্ছন্দ্যে ঘুরে দেখা যাচ্ছে, বেই কেনা যাচ্ছে। দিন গড়ালে মানুষের উপস্থিতিতে হাঁটাচলায় একটু কষ্ট হয়। সে কারণে প্রথম দিকেই মেলায় চলে এসেছি।”

অন্যান্য বারের সঙ্গে এবারের মেলার তারতম্য তুলে ধরে অধ্যাপক রওনক জাহান বলেন, “প্রতিবারই মেলায় আসা হয়। এবার স্পেসটা একটু বড় মনে হচ্ছে। পরিবেশ সবার জন্য স্বাচ্ছন্দ্যের হবে বলে মনে হয়।”

পাঠকের উপস্থিতি বাড়তে থাকায় এবারের বই মেলা জমবে বলে আশার কথা শোনালেন উৎস প্রকাশনের স্বত্বাধিকারী মোস্তফা সেলিম।

তিনি বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “মেলার চতুর্থ দিন খুব বেশি না হলেও পাঠকেরা আসতে শুরু করেছেন। পাঠকের এমন উপস্থিতি খুবই ইতিবাচক। আশা করা যায়, এবারের বই মেলায় অতীতের সব রেকর্ড ভেঙে দেবে।”

কাকলী প্রকাশনীর স্বত্বাধিকারী এ কে নাছির আহমেদ সেলিম একই সুরে বললেন, “পাঠক আসছেন, বিক্রিও বাড়ছে। তবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসির দিকে মেলার যে প্রবেশপথটি রয়েছে, সেটি দৃশ্যমান করা গেলে পাঠকের আগমন আরও বাড়বে।”

পূর্বনির্ধারিত সময় সোমবার বিকাল সাড়ে ৩টায় বই মেলার ফটক খুলে দেওয়া হয় দর্শনার্থী ও পাঠকদের জন্য। এদিন মেলার মূলমঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় ‘বঙ্গবন্ধু উপাধি অর্জনের সুবর্ণজয়ন্তী ’শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান।

আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য তোফায়েল আহমেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন নূহ-উল-আলম লেনিন।

এতে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক হারুন অর রশিদ, কথাসাহিত্যিক আনোয়ারা সৈয়দ হক আলোচনায় অংশ নেন।

মূলমঞ্চের সাংস্কৃতিক আয়োজনে কবিকণ্ঠে কবিতাপাঠ করেন মাকিদ হায়দার এবং ইকবাল আজিজ।

কবিতা আবৃত্তি করেন আবৃত্তিশিল্পী ভাস্বর বন্দ্যোপাধ্যায় এবং মাহমুদা আখতার। শিল্পী ফাতেমা-তুজ-জোহরা, খায়রুল আনাম শাকিল, ইয়াকুব আলী খান, লীনা তাপসী খান ও ক্যামেলিয়া সিদ্দিকা সঙ্গীত পরিবেশন করেন।

চতুর্থ দিনে মেলায় নতুন বই এসেছে ১৪১টি।

Facebook Comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» ছেলে সন্তানের জন্ম দিলেন আইএসের শামীমা বেগম

» যারা প্রথমবার উমরাহ করতে যাওয়ার চিন্তা করছেন, তাদের জন্য …

» বৃহত্তর নারায়ণগঞ্জ সমাজ কল্যাণ সমিতি কুয়েতের আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

» আবুধাবিতে সড়ক দুর্ঘটনায় বাংলাদেশি নিহত

» মৌলভীবাজারে ট্রেনে কাটা অজ্ঞাত যুবকের লাশ উদ্ধার

» বাংলাদেশ ফ্রেন্ডস স্পোর্টিং ক্লাব কুয়েতের পঞ্চম চ্যাম্পিয়ন ক্রিকেট লীগের উদ্বোধন

» কুয়েতের দীর্ঘতম জাতীয় পতাকা,গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ড

» কুয়েত স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদকের মায়ের মৃত্যুতে দোয়া মাহ্‌ফিল

» ডাঃ ফারহানা মোবিন এর লেখা ছোটদের বই ” উড়ে যায় মুনিয়া পাখি”

» “স্বপ্নের সাতকাহন “বইয়ের মোড়ক উন্মোচন

Agrodristi Media Group

Advertising,Publishing & Distribution Co.

Editor in chief & Agrodristi Media Group’s Director. AH Jubed
Legal adviser. Advocate Musharrof Hussain Setu (Supreme Court,Dhaka)
Editor in chief Health Affairs Dr. Farhana Mobin (Square Hospital, Dhaka)
Social Welfare Editor: Rukshana Islam (Runa)

Head Office

Mahrall Commercial Complex. 1st Floor
Office No.13, Mujamma Abbasia. KUWAIT
Phone. 00965 65535272
Email. agrodristi@gmail.com / agrodristitv@gmail.com

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
,

বইয়ের মেলায় বাড়ছে আনাগোনা

সোমবার বিকালে বই মেলায় ঘুরে পাঠকের উপস্থিতি বাড়ার চিত্র দেখা যায়। পাঠকরা নতুন বইয়ের ধারে ঘুরছেন, উল্টে-পাল্টে দেখে কিনছেনও তারা।

পাঠক বাড়ার ফলে খুশির ঝিলিক প্রকাশক ও বিক্রয়কর্মীদের মুখে; এবারের মেলায় বেশি মানুষের উপস্থিতির ইঙ্গিত ‘দেখছেন’ তারা।

বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে মেলার ভেতরে নিজেদের মতো ঘুরতে আর ছবি তুলতে দেখা যায় ঢাকা সিটি কলেজের তিন ছাত্রীকে। নানা ফুলের বাহারি ব্যান্ড পরা ছিলেন তিনজনই।

তাদের একজন তামান্না খান বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বললেন, বই দেখার পাশাপাশি বিকালে ঘুরে বেড়ানোও তাদের এখানে আসার উদ্দেশ্য। প্রতিজন দুই-তিনটা করে বইও কিনেছেন তারা।

“গত কয়েক বছর ধরে বই মেলায় আসি। প্রথম দিকে ভিড়-ভাট্টা কম থাকে। বই কেনার পাশাপাশি ঘুরেও শান্তি।”

তাদের সঙ্গে কিছু সময় কথা বলার পর মেলার সোহরাওয়ার্দী উদ্যান প্রাঙ্গণে কথা হয় রাষ্ট্রবিজ্ঞানী অধ্যাপক রওনক জাহানের সঙ্গে।

বেশ কিছু বই কিনে আপন মনেই মেলায় ঘুরে ফিরছিলেন তিনি। এরপরও বইয়ের স্টলগুলোতে ঢুঁ মারছিলেন।

তিনি সাংবাদিকদের বলেন, “শুরুর দিকে অত বেশি ভিড় নাই এখন। স্বাচ্ছন্দ্যে ঘুরে দেখা যাচ্ছে, বেই কেনা যাচ্ছে। দিন গড়ালে মানুষের উপস্থিতিতে হাঁটাচলায় একটু কষ্ট হয়। সে কারণে প্রথম দিকেই মেলায় চলে এসেছি।”

অন্যান্য বারের সঙ্গে এবারের মেলার তারতম্য তুলে ধরে অধ্যাপক রওনক জাহান বলেন, “প্রতিবারই মেলায় আসা হয়। এবার স্পেসটা একটু বড় মনে হচ্ছে। পরিবেশ সবার জন্য স্বাচ্ছন্দ্যের হবে বলে মনে হয়।”

পাঠকের উপস্থিতি বাড়তে থাকায় এবারের বই মেলা জমবে বলে আশার কথা শোনালেন উৎস প্রকাশনের স্বত্বাধিকারী মোস্তফা সেলিম।

তিনি বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “মেলার চতুর্থ দিন খুব বেশি না হলেও পাঠকেরা আসতে শুরু করেছেন। পাঠকের এমন উপস্থিতি খুবই ইতিবাচক। আশা করা যায়, এবারের বই মেলায় অতীতের সব রেকর্ড ভেঙে দেবে।”

কাকলী প্রকাশনীর স্বত্বাধিকারী এ কে নাছির আহমেদ সেলিম একই সুরে বললেন, “পাঠক আসছেন, বিক্রিও বাড়ছে। তবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসির দিকে মেলার যে প্রবেশপথটি রয়েছে, সেটি দৃশ্যমান করা গেলে পাঠকের আগমন আরও বাড়বে।”

পূর্বনির্ধারিত সময় সোমবার বিকাল সাড়ে ৩টায় বই মেলার ফটক খুলে দেওয়া হয় দর্শনার্থী ও পাঠকদের জন্য। এদিন মেলার মূলমঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় ‘বঙ্গবন্ধু উপাধি অর্জনের সুবর্ণজয়ন্তী ’শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান।

আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য তোফায়েল আহমেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন নূহ-উল-আলম লেনিন।

এতে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক হারুন অর রশিদ, কথাসাহিত্যিক আনোয়ারা সৈয়দ হক আলোচনায় অংশ নেন।

মূলমঞ্চের সাংস্কৃতিক আয়োজনে কবিকণ্ঠে কবিতাপাঠ করেন মাকিদ হায়দার এবং ইকবাল আজিজ।

কবিতা আবৃত্তি করেন আবৃত্তিশিল্পী ভাস্বর বন্দ্যোপাধ্যায় এবং মাহমুদা আখতার। শিল্পী ফাতেমা-তুজ-জোহরা, খায়রুল আনাম শাকিল, ইয়াকুব আলী খান, লীনা তাপসী খান ও ক্যামেলিয়া সিদ্দিকা সঙ্গীত পরিবেশন করেন।

চতুর্থ দিনে মেলায় নতুন বই এসেছে ১৪১টি।

Facebook Comments


এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



নির্বাচন পূর্বে সেনাবাহিনী মাঠে, নানা উচ্ছৃঙ্খলতা বন্ধে সেনাবাহিনী কার্যকরী ভূমিকা পালন করতে পারবে কি?
VOTE

প্রবাসীদের সেবায় ”প্রবাসীর ডাক্তার” শুধুমাত্র বাংলাটিভিতে

জাতীয় সংসদ নির্বাচন ২০১৮

-584 -1596 -155760 -59345600

সর্বশেষ খবর



Agrodristi Media Group

Advertising,Publishing & Distribution Co.

Editor in chief & Agrodristi Media Group’s Director. AH Jubed
Legal adviser. Advocate Musharrof Hussain Setu (Supreme Court,Dhaka)
Editor in chief Health Affairs Dr. Farhana Mobin (Square Hospital, Dhaka)
Social Welfare Editor: Rukshana Islam (Runa)

Head Office

Mahrall Commercial Complex. 1st Floor
Office No.13, Mujamma Abbasia. KUWAIT
Phone. 00965 65535272
Email. agrodristi@gmail.com / agrodristitv@gmail.com

Bangladesh Office

Director. Rumi Begum
Adviser. Advocate Koyes Ahmed
Desk Editor (Dhaka) Saiyedul Islam
44, Probal Housing (4th floor), Ring Road, Mohammadpur,
Dhaka-1207. Bangladesh
Contact: +8801733966556 / +8801920733632

Email Address

agrodristi@gmail.com, agrodristitv@gmail.com

Licence No.

MC- 00158/07      MC- 00032/13

Design & Devaloped BY Popular-IT.Com